রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:৫৪ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
প্রতিবন্ধীদের পাশে দাঁড়ানো আমাদের দায়িত্ব : পরিকল্পনামন্ত্রী মার্কিন সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ড. মোমেনের বৈঠক যুদ্ধ বন্ধ করুন : জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী সব সময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে সৌদি আরব : রাষ্ট্রদূত আল দুহাইলান নলছিটিতে গলায় ফাঁস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা ভোলার ২৫০ শয্যা হাসপাতালের আধুনিক ভবন নির্মানের ৩ বছরেও চালু হয়নি পটুয়াখালীতে ইউপি সচিবের দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশে স্থানীয় সরকার প্রকৌশলীর তদন্ত বেতাগীতে সরকারি গাছ কাটতে বাঁধা দেয়ায় এক যুবককে কুপিয়ে আহত ভোলায় দেশি হাঁসের কালো ডিম পাড়া নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি আপনজন ভাবনাঃ এস এম আক্তারুজ্জামান, ডিআইজি বরিশাল রেঞ্জ

দেশের মেধাবী তরুণরাই তৈরি করবে পূর্ণঙ্গ স্যাটেলাইট: আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • আপলোডের সময় : রবিবার, ৬ মার্চ, ২০২২
  • ৬০ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

গবেষণা ও উন্নয়নের মাধ্যমে মহাকাশ প্রযুক্তি নিয়ে কাজ শুরু করেছে বাংলাদেশ। বাণিজ্যিক ভাবে মহাকাশ জীবনের উপযোগী বিভিন্ন মডিউল তৈরি করতে রবিবার একটি ত্রি-পাক্ষিক চুক্তি সম্পাদিত হয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অ্যারোস্পেস অ্যান্ড এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে, ব্রিজ টু বাংলাদেশ, অ্যাসপায়ার টু ইনোভেশন এবং পিকো স্যাটেলাইটের মধ্যে এই চুক্তি হয়েছে।

লালমানিরহাটে অবস্থিত দেশের প্রথম এই মাহাকাশ বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন রেজিস্ট্রার এয়ার কমোডর মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল মাহবুব। গবেষণা সহায়তায় এটুআই এর পক্ষে চুক্তি করেন ইনোভেশন ল্যাবের হেড অব টেকনোলজি ফারুক আহমেদ জুয়েল। বিটুবি’র হয়ে চুক্তিতে সই করেন প্রতিষ্ঠানটির সহ-সভাপতি সাজেদুল ইসলাম। আর পিকো স্যাটেলাইট ল্যাব স্থাপনের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন প্রফেসর ড. নাজমুল উলা। এই চুক্তির মধ্যেমে দেশে একটি মহাকাশ ইকো সিস্টেম গড়ে তুলবে প্রতিষ্ঠান চারটি। চুক্তিকারী ব্যক্তিদের প্রত্যাশা বাংলাদেশ একদিন নিশ্চয় মহাকাশ যুগে বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল অক্ষরে লেখা থাকবে।

চুক্তি সই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুলি সংযুক্ত ছিলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। আরো সংযুক্ত ছিলেন বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. শাহজাহান মাহমুদ, বিটুবি উপদেষ্টা মোঃ আসাদুজ্জামান নূর।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আগামী দিনগুলোতে দেশ থেকে আরো অনেক অনেক স্যাটেলাইট উৎপাদন করার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন জুনাইদ আহমেদ পলক। তিনি বলেন, কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি, আরবান প্লানিং, আর্লি ফ্লাড ডিটেকশনের জন্য আমাদের অনেক অনেক স্যাটেলাইট উৎক্ষেপন করা প্রয়োজন। সে ক্ষেত্রে আজকে যে এমওইউ হলো তা অবজারভেটরি স্যাটেলাইট সহ পিকো, ন্যানো স্যাটেলাইট এগুলো উৎপাদনে আমাদের সক্ষমতা প্রয়োজন।
তিনি আশাবাদ ব্যক্ত বলেন আমাদের দেশের মেধাবী তরুণরাই তৈরি করবে পূর্ণঙ্গ স্যাটেলাইট।

পিকো স্যাটেলাইট প্রকল্পের মাধ্যমে মঙ্গলগ্রহসহ অন্যান্য উপগ্রহে জনবসতি গড়ে তুলতে এই চুক্তি জানিয়ে বাংলাদেশে উদ্ভাবনী ইকোসিস্টেম ও উদ্যোক্তা সংস্কৃতি গড়ে তুলতে আইসসিটি বিভাগ সমন্বয়কের ভূমিকা পালন করছে বলে জানান আইসিটি প্রতিমন্ত্রী।

এই চুক্তির মাধ্যমে দেশের মেধাবী তরুণরাই সামনে পূর্ণাঙ্গ নিজস্ব স্যাটেলাইট বানাবে এবং উৎক্ষেপন করতে পারবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন জুনাইদ আহমেদ পলক। এজন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অ্যারোস্পেস অ্যান্ড এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে সব ধরনের সহায়তার আশ্বাস দেন তিনি।

রাজধানীর লা মেরিডয়ান হোটেলে অনুষ্ঠিত সমঝোত চুক্তি অনুষ্ঠান সভাপতিত্ব করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন উপাচার্য এয়ার ভাইস মার্শাল মো. নজরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন
বাংলাদেশ কোম্পানির এ্যাডভাইজার এবং সাবেক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, ,এটুআই নীতি উপদেষ্টা আনীর চৌধুরী, ব্রিজ টু বাংলাদেশের সভাপতি প্রকৌশলী আজাদুল হক।
এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ইনোভেশন ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা আরিফুল হাসান অপু।

দয়া করে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..