রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৩৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
প্রতিবন্ধীদের পাশে দাঁড়ানো আমাদের দায়িত্ব : পরিকল্পনামন্ত্রী মার্কিন সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ড. মোমেনের বৈঠক যুদ্ধ বন্ধ করুন : জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী সব সময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে সৌদি আরব : রাষ্ট্রদূত আল দুহাইলান নলছিটিতে গলায় ফাঁস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা ভোলার ২৫০ শয্যা হাসপাতালের আধুনিক ভবন নির্মানের ৩ বছরেও চালু হয়নি পটুয়াখালীতে ইউপি সচিবের দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশে স্থানীয় সরকার প্রকৌশলীর তদন্ত বেতাগীতে সরকারি গাছ কাটতে বাঁধা দেয়ায় এক যুবককে কুপিয়ে আহত ভোলায় দেশি হাঁসের কালো ডিম পাড়া নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি আপনজন ভাবনাঃ এস এম আক্তারুজ্জামান, ডিআইজি বরিশাল রেঞ্জ

পটুয়াখালীতে সেই আলোচিত হত্যা মামলায় প্রধান আসামি মেয়র মহিউদ্দিন

 অনলাইন ডেস্ক:
  • আপলোডের সময় : শুক্রবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৯ বার পঠিত

সেই আলোচিত পটুয়াখালীর পৌরসভাস্থ শ্মশান ঘাট সংলগ্ন পরিমাপ নিয়ে মাকসুদুর রহমান তদালুকদারকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যার অভিযোগ এনে আদালতে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে পটুয়াখালীর পৌর মেয়র মহিউদ্দিন আহমেদকে।

বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর ) মোঃ এনামুল হক নামে একজন ব্যক্তি বাদী হয়ে পটুয়াখালী বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ১ম আমলী আদালতে হত্যা মামলা দায়ের করলে ম্যাজিস্ট্রেট আশিকুর রহমান লাশ কবর থেকে উত্তোলন পূর্বক ময়নাতদন্তের জন্য সিআইডি কে নির্দেশ প্রদান করেন।

মামলায় আসামিরা হলেন, ১| মহিউদ্দিন আহমেদ (৪৫), পিতা মৃত মোয়াজ্জেম হোসেন। ২| এনামুল হক (৩৮), পিতা মৃত খলিলুর রহমান। ৩| এসএম ফারুক মৃধা (৪৮), পিতা মৃত সেকান্দার মৃধা। ৪| মোঃ নিজাম (৩৬), পিতা মৃত মস্তফা খলিফা। ৫| অপু সিকদার (৪৫), পিতা মৃত আব্দুল মন্নান সিকদার। ৬| আমিনুল ইসলাম মামুন (৫২), পিতা মৃত শাহজাহান মিয়া সহ আরও অজ্ঞাত ১০/১২ জন আসামি। সিআর মামলা নং ১২৩/২২ যাহা বিজ্ঞ আইনজীবী প্রতিবেদক কে নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার (৬ই সেপ্টেম্বর ) দুপুরে জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মনজুর আহমেদ চৌধুরী পটুয়াখালীতে নদী ও খাল দখল মুক্ত করার লক্ষ্যে শ্মশান ঘাট এলাকা পরিদর্শন করতে গেলে সাথে পৌর মেয়র মহিউদ্দিন সহ কাউন্সিলর এবং মেয়রের অন্যান্য লোক উপস্থিত ছিলেন।

ওই সময় জমির মালিক মাকসুদুর রহমান তালুকদারও উপস্থিত হয়ে জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মনজুর আহমেদ চৌধুরীর কাছে মেয়রের বিভিন্ন অপকর্মের কথা তুলে ধরলে মেয়র মহিউদ্দিন তাকে ধাক্কা দেয় এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে।

পরে তাকে পুলিশ দ্বারা হাতকড়া দিয়ে আটকে রেখে মেয়রের নির্দেশে কাউন্সিলর ফারুক হোসেন, মেয়রের পিএস এনামুল সহ অন্যারা সুযোগ বুঝে মাকসুদুর রহমান তালুকদারকে ফাকে নিয়ে হত্যা করে বলে অভিযোগ করেন পরিবারের লোকজন সহ ভাতিজা নাসির উদ্দিন নামে একজন।

দয়া করে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..