রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৪৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
প্রতিবন্ধীদের পাশে দাঁড়ানো আমাদের দায়িত্ব : পরিকল্পনামন্ত্রী মার্কিন সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ড. মোমেনের বৈঠক যুদ্ধ বন্ধ করুন : জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী সব সময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে সৌদি আরব : রাষ্ট্রদূত আল দুহাইলান নলছিটিতে গলায় ফাঁস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা ভোলার ২৫০ শয্যা হাসপাতালের আধুনিক ভবন নির্মানের ৩ বছরেও চালু হয়নি পটুয়াখালীতে ইউপি সচিবের দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশে স্থানীয় সরকার প্রকৌশলীর তদন্ত বেতাগীতে সরকারি গাছ কাটতে বাঁধা দেয়ায় এক যুবককে কুপিয়ে আহত ভোলায় দেশি হাঁসের কালো ডিম পাড়া নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি আপনজন ভাবনাঃ এস এম আক্তারুজ্জামান, ডিআইজি বরিশাল রেঞ্জ

মাধ্যমিকের ১২ লাখ বই এখনো পৌঁছায়নি ভোলায়

সাব্বির আলম বাবু (ভোলা ব্যুরো চিফ):
  • আপলোডের সময় : রবিবার, ২ জানুয়ারী, ২০২২
  • ৭২ বার পঠিত

আনুষ্ঠানিকভাবে এবার বই উৎসব না হলেও নতুন বইয়ের পরশ থেকে বঞ্চিত হয়নি ভোলার শিক্ষার্থীরা। জেলার ১ হাজার ৪৭ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২ লাখ ৬৪ হাজার ৬ শত ৪৬ শিক্ষার্থীর মাঝে ১২ লাখ ৫৭ হাজার ৫২৯ টি বই বিতরণের শুরু হয়েছে। বছরের প্রথম দিনে বই পেয়ে দারুণ খুশি শিক্ষার্থীরা।প্রাথমিকের সব বই এসে পৌঁছালেরও জেলার ৫১২ টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মাদরাসার ৩ লাখ ৭২ হাজার ২২৮ জন শিক্ষার্থীর জন্য বরাদ্দ চাওয়া সব বই এখনো জেলায় এসে পৌঁছায়নি বলে জানিয়েছেন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা। এখনো মাধ্যমিকের ১২ লাখ ২৬ হাজার বই জেলায় এসে পৌছায়নি। আজ শনিবার অনানুষ্ঠানিক ভাবে প্রাথমিক বিদ্যালয় গুলোতে স্বাস্থ্য বিধি মেনে বই বিতরণ করা হয়। আগামী সপ্তাহের মধ্যে এ বই বিতরণ শেষ হবে বলে জানা গেছে।
নজরুল্লাহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাহিদা আক্তার সুমনা জানান, করোনার কারণে বই উৎসব না হওয়ায় আমরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের মাঝে বই বিতরণ শুরু করেছি শ্রেণিভেদে পর্যায়ক্রমে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে সব শিক্ষার্থীদের হাতে বই পৌঁছে দেওয়া হবে। নজরুল্লাহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সালমা সারমিন জানান, বই উৎসব না থাকলেও নতুন বই পেয়ে ছাত্রছাত্রীরা অনেক খুশি আনন্দিত। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নিখিল চন্দ্র দাস জানান, বই বিতরণে কোন সমস্যা হচ্ছে না। সবকিছু স্বাভাবিকভাবে চলছে। করোনার কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বই বিতরণের জন্য বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, তারা সে অনুযায়ী কাজ করছেন।
জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মাধব চন্দ্র দাস জানিয়েছেন, জেলার ৭ উপজেলার ৫১২ টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মাদরাসার ৩ লাখ ৭২ হাজার ২২৮ জন শিক্ষার্থীর মাঝে বই বিতরণ শুরু হয়েছে। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য জেলা শিক্ষা বিভাগ থেকে ৪২ লাখ ৪৯ হাজার ৮৩ টি বইয়ের চাহিদা দেওয়া হলেও এ পর্যন্ত পাওয়া গেছে ৩০ লাখ ২২ হাজার ১৫৭ টি বই। এখনো ১২ লাখ ২৬ হাজার ৯ শত ২৬ টি বই ঘাটতি রয়েছে। তিনি আরও জানান, শনিবার ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মাঝে বই বিতরণ শুরু হয়েছে। আগামীতে সব শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বই বিতরণ করা হবে।

দয়া করে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..