রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ০৭:৩৯ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
জাল ভোট পড়লেই কেন্দ্র বন্ধ করে দেওয়া হবে : ইসি আহসান হাবিব জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে কেউ যেন বৈষম্যের শিকার না হন: রাষ্ট্রপতি শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশে মুখস্ত শিক্ষার ওপর নির্ভরতা কমাতে পাঠ্যক্রমে পরিবর্তন আনা হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী কিশোরগঞ্জে তীব্র দাবদাহে ইসলামী যুব আন্দোলনের হাতপাখা বিতরণ দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে টেকসই কৌশল উদ্ভাবনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর হলুদ সাংবাদিকতা প্রতিরোধে সকলকে দায়িত্বশীল হতে হবে : বিচারপতি নিজামুল হক গলাচিপা ও দশমিনায় প্রকাশ্যে নিধন হচ্ছে রেনু পোনা,কথা বলতে নারাজ কর্তৃপক্ষ ডিএসইসির নবনির্বাচিত কমিটির দায়িত্ব গ্রহণ বেলা অবেলা : স্বপ্না রহমান ডিএসইসি’র নতুন সভাপতি ডিবিসি’র মুক্তাদির অনিক

ধুকতে থাকা শ্রীলঙ্কায় মিলছে না ওষুধ, বন্ধ অস্ত্রোপচার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
  • আপলোডের সময় : বুধবার, ১৩ এপ্রিল, ২০২২
  • ৫৮৯০ বার পঠিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

আট বছর আগে প্রথমবার ক্যান্সারের চিকিৎসা নিয়েছিলেন রোসান্নে হোয়াইট। পরে একটি কিডনি হারান তিনি। পাঁচ বছর আগে ক্যান্সার ফের শরীরে হানা দেওয়ায় শ্রীলঙ্কার বাণিজ্যিক রাজধানী কলম্বোর একজন ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ গত মে মাসে বেভাসিজুমাব ইনজেকশন দিয়ে রোসান্নের চিকিৎসা শুরু করেছিলেন। একই চিকিৎসা আট বছর আগে তাকে দিয়েছিলেন এই চিকিৎসক।

৫৮ বছর বয়সী লঙ্কান অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হোয়াইট। তিনি বলেন, দেশের সার্বজনীন সরকারি স্বাস্থ্য ব্যবস্থার আওতায় তিনি বিনামূল্যে ক্যান্সারের ইনজেকশন পেতেন। ২ কোটি ২০ লাখ মানুষের দেশটিতে অনেকেই বিনামূল্যে এই ইনজেকশন পান।

ইনজেকশনটি ১৩ বার নেওয়ার পর এখন সরকারি হাসপাতালে সেটি আর মিলছে না বলে জানিয়েছেন হোয়াইট। ইন্সুরেন্স না থাকার কারণে বেসরকারি বাজারে এখন এক ডোজ টিকার দাম পড়ছে ১ লাখ ১৩ হাজার লঙ্কান রুপি। ফলে যে সীমিত সঞ্চয় ছিল হোয়াইটের তা এই ওষুধ কেনায় ফুরিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘ওষুধটি পাওয়া যাচ্ছে কি-না তা জানতে চিকিৎসার জন্য যাওয়ার আগে আমাদের এখন হাসপাতালে ফোন করতে হয়। কিন্তু নার্সরা যখন বলেন, হাসপাতালে ওষুধ নেই, তখন আপনি কী করবেন?’

বেভাসিজুমাব খুঁজে পেতে হোয়াইটকে যে লড়াই করতে হচ্ছে, তা চলমান অর্থনৈতিক সঙ্কটে শ্রীলঙ্কার স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা কীভাবে ভেঙে পড়ার দ্বারপ্রান্তে পৌঁছেছে তার প্রাথমিক লক্ষণ। গুরুত্বপূর্ণ ওষুধের ঘাটতি ছাড়াও কিছু চিকিৎসা এবং রোগীদের রোগ নির্ণয়ের টেস্টও স্থগিত করা হয়েছে।

বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের অভাবে ওষুধ, জ্বালানিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী আমদানি করতে পারছে না দেশটির প্রেসিডেন্ট গোটাবায়া রাজাপাকসে নেতৃত্বাধীন সরকার। যে কারণে দেশটিতে চরম বিদ্যুৎ সঙ্কটও দেখা দিয়েছে। বন্ধ হয়ে যাচ্ছে কল-কারখানার উৎপাদনও। চরম অর্থনৈতিক এই সঙ্কটের জন্য সরকারকে দায়ী করে প্রত্যেকদিন দেশটির হাজার হাজার মানুষ ক্ষমতাসীনদের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন করছেন।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স শ্রীলঙ্কার সরকারি দুজন কর্মকর্তা, ছয়জন চিকিৎসক ও একজন স্বাস্থ্যসেবা ইউনিয়ন নেতার সঙ্গে কথা বলেছে। তারা বলেছেন, আগে কখনই শ্রীলঙ্কার স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থাকে তারা এত খারাপ হতে দেখেননি।

কলম্বোর অন্যতম সরকারি একটি হাসপাতালের অভ্যন্তরীণ মেমো দেখেছে রয়টার্স। এতে বলা হয়েছে, অস্ত্রোপচারের জন্য প্রয়োজনীয় ওষুধ এবং সরঞ্জামের সরবরাহ ঘাটতির কারণে ৭ এপ্রিল থেকে কেবলমাত্র জরুরি, দুর্ঘটনায় আহত এবং ক্যান্সারের অস্ত্রোপচার করা হবে।

দেশটির স্বাস্থ্যখাত যে সমস্যার মুখোমুখি হয়েছে সে বিষয়ে বিস্তারিত জানতে রয়টার্সের করা প্রশ্নের কোনো জবাব দেয়নি শ্রীলঙ্কার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

দক্ষিণ এশিয়ার এই দ্বীপরাষ্ট্র পর্যটন খাতের আয়ের ওপর ব্যাপকভাবে নির্ভরশীল। করোনাভাইরাস মহামারির কারণে দেশটির পর্যটন খাতে ব্যাপক ধস নেমেছে। ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে জ্বালানি আমদানি করতে না পারায় এর দামও ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে দেশটিতে।

কিছু অর্থনীতিবিদ বলছেন, সরকারের অব্যবস্থাপনা, বছরের পর বছর ধরে ঋণ নিলেও পরিশোধের ব্যবস্থা না করা এবং ২০১৯ সালে অযৌক্তিক শুল্ক কাটছাঁট এবং আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) ঋণ সহায়তার আলোচনা পিছিয়ে যাওয়ায় চরম অর্থনৈতিক সঙ্কটের মুখে পড়েছে শ্রীলঙ্কা। তবে আইএমএফের ঋণ সহায়তার বিষয়ে এখন আলোচনা শুরু হয়েছে।

রাজাপাকসের ঘনিষ্ঠ একজন সহযোগী বলেছেন, অর্থনীতি চাঙ্গা করার জন্য শুল্ক কাটছাঁট করা হয়েছিল। কিন্তু করোনাভাইরাস মহামারির আঘাতে সবকিছু তছনছ হয়ে গেছে।

দয়া করে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..