শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:২৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
বেতাগীতে উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে ইউপি চেয়ারম্যানের পদত্যাগ মুরাদনগরে প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ ও প্রদর্শনীর উদ্বোধন ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন প্রধানমন্ত্রীর তৃতীয় ধাপে ১১২টি উপজেলার ভোটগ্রহণ ২৯ মে ঝালকাঠিতে ট্রাক, অটোরিকশা ও প্রাইভেট কারের ত্রিমুখী সংঘর্ষে ১৪ জন নিহত মধ্যপ্রাচ্যের অস্থিরতার প্রতি নজর রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর মির্জাগঞ্জে কৃষি জমিতে সেচ দিতে গিয়ে যুবক ফিরলো লাশ হয়ে মির্জাগঞ্জে ইসি সচিব’র সাথে মতবিনিময় সভা পটুয়াখালীতে সাবেক ইউপি সদস্যের স্ত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু তাড়াইলে জাতীয় উলামা মশায়েখ আইম্মা পরিষদের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

আগের রাতেই কানায় কানায় পূর্ণ বিএনপির বরিশাল সমাবেশস্থল

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • আপলোডের সময় : শনিবার, ৫ নভেম্বর, ২০২২
  • ৬০১৩ বার পঠিত

রাত পোহালেই বিএনপির বরিশাল বিভাগীয় গণসমাবেশ। তবে সমাবেশের আগের রাতেই কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে গেছে নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যান। গতকাল বৃহস্পিতবার (৩ নভেম্বর) রাতের মতো শুক্রবার (৪ নভেম্বর) রাতেও নেতা-কর্মীরা সমাবেশের মাঠে অবস্থান করছেন। তবে গত রাতের তুলনায় আজ লোকসমাগম বেড়েছে।

বিএনপির দায়িত্বশীল নেতারা বলছেন, এবারের গণসমাবেশে লোকসমাগমে অতীতের রেকর্ড ভেঙে যাবে। দফায় দফায় মিছিল স্লোগান দিয়ে সরগরম করে রাখা হয়েছে সমাবেশস্থল। পুরো উদ্যান ব্যানার-ফেস্টুনে ছেয়ে ফেলা হয়েছে। দলের শীর্ষ নেতারা বরিশালে অবস্থান করলেও তারা সমাবেশস্থলে আসেননি।

বিভাগীয় এই গণসমাবেশে যোগ দিতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, আব্দুল মঈন খান, সেলিমা রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান এজেডএম ডা. জাহিদ হাসান, অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদিন, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী সোহেল বরিশালে রয়েছেন।

গণসমাবেশের সভাপতি বরিশাল মহানগর বিএনপির আহবায়ক মনিরুজ্জামান ফারুক বলেন, অন্যান্য বিভাগের মতো বরিশালেও বাধা দিয়ে আওয়ামী লীগ ব্যর্থ হয়েছে। সমাবেশস্থল ইতোমধ্যে জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছে। এখনো নেতা-কর্মীরা আসছেন। তাদেরকে পথে পথে বাধা দেওয়া হচ্ছে।

বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বিলকিস জাহান শিরিন বলেন, মঞ্চ তৈরিসহ সার্বিক প্রস্তুতি শেষ। সরকারের কোনো বাধাই এখন কাজে আসলো না। মানুষ আর এই সরকার চায় না বলেই শত বাধা-নির্যাতন সত্যেও সমাবেশে ঢল নেমেছে। আগামীকালের ঐতিহাসিক সমাবেশে সরকারের ভাগ্য নির্ধারণ হবে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও গণসমাবেশ বাস্তবায়ন উপ-কমিটির মিডিয়া উপ-কমিটির সদস্য সচিব আবু নাসের মো. রহমাতুল্লাহ বলেন, সকল বাধা উপক্ষো করে জেলা ও উপজেলার নেতা-কর্মীরা এসে ইতোমধ্যে সমাবেশস্থল জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছে। এর আগে চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, খুলনা ও রংপুরের বিভাগীয় সমাবেশে একইভাবে সব কিছু বন্ধ করে দিয়ে সমাবেশ বানচাল করতে চেয়েছিল। কিন্তু তাতে সফল হয়নি সরকার। বরিশালেও গণজোয়ার অব্যাহত রয়েছে।

প্রসঙ্গত, নিত্যপণ্য ও জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি, পুলিশের গুলিতে দলের নেতা-কর্মীদের মৃত্যুর প্রতিবাদসহ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে দেশের সব বিভাগে গণসমাবেশ করছে বিএনপি। চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, খুলনা ও রংপুরের পর শনিবার (৫ নভেম্বর) বরিশালে গণসমাবেশ করার কথা রয়েছে। এটি বিএনপির পঞ্চম বিভাগীয় গণসমাবেশ।

ইতোমধ্যে সমাবেশস্থল বরিশালের বঙ্গবন্ধু উদ্যানে জড়ো হয়েছেন বিভাগের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা কয়েক হাজার নেতা-কর্মী। মিছিল আর বিভিন্ন স্লোগানে মুখর হয়ে উঠেছে সমাবেশস্থল। শনিবার দুপুর থেকে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন জেলা থেকে আসা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা সমাবেশে বক্তব্য দেবেন।

দয়া করে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..