বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ

কুড়িগ্রামে ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউিট স্থাপন করা হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • আপলোডের সময় : রবিবার, ২২ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ৫৭৫৮ বার পঠিত

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, চট্টগ্রামের নিয়ন্ত্রণে ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউিট (এনএমআই)-এর মাদারীপুর শাখার নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। শিগগিরই উদ্বোধন করে মাদারীপুর ক্যাম্পাসে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু করা হবে। সেখানে প্রতি ব্যাচে ৩০০ জন করে দুটি ব্যাচে প্রতি বছর মোট ৬০০ জনকে প্রশিক্ষণ দেওয়া সম্ভব হবে। তারই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় উত্তরবঙ্গের কুড়িগ্রামে ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউিট, কুড়িগ্রাম শাখা স্থাপনের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।

রোববার (২২ জানুয়ারি) ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউিট (এনএমআই) চট্টগ্রামের ২৪তম এবং এনএমআই, মাদারীপুরের ১৩তম ব্যাচের প্রশিক্ষণার্থী রেটিংসদের পাসিং আউট অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

এসময় তিনি বলেন, ডিজিটালাইজেশনের কারণে বিশ্বনৌবহর দ্রুতগতিতে উন্নত হচ্ছে। সে সঙ্গে তাল মিলিয়ে জাহাজি অফিসার ও রেটিংদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হচ্ছে। দিন বদলের পালায় বর্তমান সরকারের ভিশন-২০৪১ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সব সেক্টর একযোগে কাজ করে যাচ্ছে। তার প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ নিম্নমধ্য আয়ের দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে এবং উন্নয়নশীল দেশ থেকে উন্নত দেশে পরিণত হওয়ার পথে এগিয়ে চলছে। আগামী ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে। এরই অংশীদার হিসেবে শিপিং সেক্টরও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হয়েছে।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, মেরিটাইম কর্মকাণ্ডের কেন্দ্রে পরিণত করার লক্ষ্যে সরকার ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউিটে ‘শেখ রাসেল সিমুলেটর ভবন’ নির্মাণ করেছে। যার মধ্যে ফুল মিশন ব্রিজ সিমুলেটর, ফুল মিশন ইঞ্জিন সিমুলেটর এবং হাইভোল্টেজ সিমুলেটরসহ অন্যান্য আধুনিক প্রশিক্ষণ যন্ত্রপাতি স্থাপন করা হয়েছে। এর ফলে বাংলাদেশের শিপিং সেক্টরের সংশ্লিষ্ট অফিসার ও রেটিংসদের উন্নতমানের প্রশিক্ষণ দেওয়ার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। এ ধরনের প্রশিক্ষণের জন্য বাংলাদেশী অফিসার ও রেটিংসদের আর বিদেশে যাওয়ার প্রয়োজন হবে না। ফলে দেশের আর্থিক সাশ্রয় হবে এবং বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের সুযোগ সৃষ্টি হবে। একই সঙ্গে কর্মসংস্থানও বৃদ্ধি পাবে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ‍্যে বক্তব্য রাখেন নৌপরিবহন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কমডোর মো. নিজামুল হক, ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউিটের অধ্যক্ষ ক্যাপ্টেন আতাউর রহমান। এসময় উপস্থিত ছিলেন সামরিক-বেসামরিক ব্যক্তিদের পাশাপাশি দেশি ও বিদেশি জাহাজ মালিক এবং এজেন্টদের প্রতিনিধিরা।

অনুষ্ঠানে দুজন রেটিংসকে গোল্ড মেডেল ও সিলভার মেডেল পদক দেওয়া হয়। বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশনের সৌজন্যে প্রদত্ত গোল্ড মেডেল প্রাপ্ত হন অল রাউন্ড রেটিং মো. আতিকুর রহমান টুটুল এবং মেসার্স হক অ্যান্ড সন্স লিমিটেডের সৌজন্যে প্রদত্ত বেস্ট গ্রাউন্ড ড্রিল সিলভার মেডেল পান প্যারেড কমান্ডার মো. ইসমাইল হোসেন। তারা দুজনই চট্টগ্রাম এনএমআইয়ের। প্রশিক্ষণ কোর্সে ২৯৭ জন প্রশিক্ষণার্থী অংশগ্রহণ করেন। এর মধ‍্যে ৬৮ জন মাদারীপুর এনএমআইয়ের।

দয়া করে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..