মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০৮:৫৩ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
রাঙ্গাবালী উপজেলা ছাত্রলীগের নতুন সভাপতি আরিফ, সম্পাদক জামিল পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতি প্রধান আসামি গ্রেফতার মুরাদনগরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্লাস্টিকের বেঞ্চ সরবরাহ দা-বঁটি-ছুরি-চাপাতি বানাতে ব্যস্ত কামার শিল্পী, টুংটাং শব্দে মুখরিত তাড়াইল মির্জাগঞ্জে আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) উদ্যোগে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ মিরপুর সাইন্স কলেজের ৩য় ব্যাচের শিক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজনে সকল রাজনৈতিক দলকে আমন্ত্রণ জানানো হবে : ওবায়দুল কাদের শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠকে দু’দেশের সম্পর্ক আগামীতে আরো দৃঢ় করার ব্যাপারে আশাবাদী মোদির শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগদান শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী মির্জাগঞ্জে উপজেলা চেয়ারম্যান আবু বকর, ভা: চেয়ারম্যান শাওন মহিলা ভা: চেয়ারম্যান হাসিনা নির্বাচিত

ফায়ার সার্ভিসের পল্লবী স্টেশন চালু

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • আপলোডের সময় : সোমবার, ৬ মার্চ, ২০২৩
  • ৫৮৩৪ বার পঠিত

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের পল্লবী ফায়ার স্টেশনের উদ্বোধন করেছেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ।

সোমবার (৬ মার্চ) সকাল ৯টায় রাজধানীর মিরপুর ডিওএইচএসের ভেতরে নির্মিত পল্লবী ফায়ার স্টেশনের উদ্বোধন করেন তিনি।

এসময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব মো. আবদুল্লাহ আল মাসুদ চৌধুরী, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মাইন উদ্দিন, সেনাবাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা গেছে, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের পল্লবী ফায়ার স্টেশনটি ‘এ’ শ্রেণির। চার তলা ফাউন্ডেশনে নির্মিত তিন তলা বিশিষ্ট স্টেশন ভবন।

০.৪১৩ একর জমিতে ফায়ার স্টেশনটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৬ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। ২০২১ সালের ২৬ জুনে এর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। শেষ হয় ২০২২ সালের ১৮ জুলাই। ওই বছরের ১০ আগস্ট স্টেশনটি ব্যবহারের উপযোগী হিসেবে হস্তান্তর করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান বঙ্গ বিল্ডার্স লি.।

সিনিয়র স্টেশন অফিসার, স্টেশন অফিসার, লিভার, ড্রাইভার ও ফায়ার ফাইটার পদসহ পল্লবী ফায়ার স্টেশনের জন্য মঞ্জুরীকৃত জনবল ৪২ জন।

উদ্বোধন শেষে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মাইন উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, দেশে পরপর বেশ কয়েকটি বিস্ফোরণ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। যে যার জায়গা থেকে আমরা যদি সচেতন থাকি তাহলে যে কোনো অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা রোধ করা সম্ভব।

২০০৯ সালে ফায়ার সার্ভিসের জনবল ছিল মাত্র ৬০০০ হাজার জন। সেখান থেকে জনবল বৃদ্ধি পেয়ে এখন হয়েছে ১৪ হাজার ৪৫৭ জন। জনবল বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে বৃদ্ধি পেয়েছে সরঞ্জামাদিও। এছাড়া অগ্নিকাণ্ড প্রতিরোধ ও আগুন নেভানোর মতো ৯০ শতাংশ সরঞ্জামাদি আমাদের রয়েছে।

দয়া করে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..