শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০৪:০৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
সড়ক ও জনপথ কর্মকর্তার ব্যাংকে শত কোটি টাকার লেনদেন হরিরামপুরে ৪ ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা অনিয়ম-দুর্নীতির মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা অর্জনের অভিযোগ ডিপিএইচই’র প্রাক্কলনিক আনোয়ারের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের উন্নয়নে চীনের সমর্থন অব্যাহত রাখার আশ্বাস দিলেন শি জিনপিং বেনজীর-মতিউর-এর কুশপুতুল দাহ করায় হুমকি : উদ্বেগ প্রকাশ কোটা সমস্যার সমাধান করার দাবি জাতীয় শিক্ষাধারার হরিরামপুরে পদ্মা তীর রক্ষা বাঁধে ধস, জনমনে আতংক মুরাদনগর শ্রীকাইলে ক্যাপ্টেন নরেন্দ্রনাথ দত্ত স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনালে হুরোয়া চ্যাম্পিয়ন তাড়াইলের কথিত পীর লুৎফর রহমানের বিরুদ্ধে ইউএনও বরাবর লিখিত অভিযোগ বর্ষার পানি বৃদ্ধির সঙ্গে বাড়ছে নৌকার চাহিদা

ইভ্যালি কাণ্ডে তাহসান, মিথিলা, শবনম ফারিয়ার বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপলোডের সময় : শুক্রবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৬০৭৯ বার পঠিত

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির গ্রাহকদের অর্থ আত্মসাতের ঘটনায় এর সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ধানমন্ডি থানায় এ মামলাটি করেন সাদ স্যাম রহমান নামের একজন গ্রাহক। মামলায় আসামি করা হয়েছে জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী ও ইভ্যালির চিফ গুডনেস অফিসার তাহসান খান, সোস্যাল মিডিয়া তারকা এবং ইভ্যালির প্রধান বিপনন কর্মকর্তা আরিফ আর হোসাইন, প্রধান জনসংযোগ কর্মকর্তা শবনম ফারিয়া, ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর রাফিয়াদ রশিদ মিথিলা।

এ ছাড়া মামলায় এক নম্বর আসামি করা হয়েছে ইভ্যালির চেয়ারম্যান শামীমা নাছরিন এবং দুই নম্বর আসামি ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. রাসেল। প্রতারণা ও অর্থ আত্নসাৎ মামলায় বর্তমানে এ দুজন কারাগারে রয়েছেন। মামলার অন্য আসামিরা হচ্ছেন- ইভ্যালির ভাইস প্রেসিডেন্ট আকাশ, ক্যাটাগরি হেড মোহাম্মদ আবু তাহের সাদ্দাম, এক্সিকিউটিভ অপারেশন (বাইক) মো. আবু তায়েশ।

মামলার বাদী সাদ স্যাম রহমান বলেন, আমি ইভ্যালিতে বাইক অর্ডার করেছিলাম। দীর্ঘ চেষ্টায়ও বাইক পাইনি। তাই বাধ্য হয়ে মামলা করেছি। তিনি বলেন, তাহসানের মত একজন মানুষকে ট্রাস্ট করেছি। এর বাইরে যারা আছেন তারাও ইভ্যালির গুনগান গেয়েছেন। তাদের দেখে আশান্বিত হয়েছিলাম। ভেবেছি এরা থাকলে কোম্পানি প্রতারণা করবেনা। তাই তিন লাখ ১৮হাজার টাকার বাইক অর্ডার করেছি। সাতমাস আগে অর্ডার করেছি, এখন পর্যন্ত পাইনি। কতদিন এভাবে বাইকের জন্য অপেক্ষা করবো।

মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের উপপরিদর্শক মো. রাজিব হাসান বলেন, তাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এরমধ্যে আটক শামীমা নাছরিন ও মো. রাসেলকে শোন অ্যারেস্ট দেখানোর আবেদন জানিয়েছি আদালতে। তিনি বলেন, আসামীদের মধ্যে বাকি যারা আছে, তাদের সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে আমরা খোঁজখবর নিচ্ছি। নাম ঠিকানা যাচাই-বাছাই করছি। প্রতারণায় জড়িত থাকলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দয়া করে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..