বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:৩৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
ইরানি সংস্কৃতিতে আমূল পরিবর্তন প্রয়োজন, বললেন খামেনি রেলপথে ৩৪০ দিনে ১ হাজার ৫৩৫ দুর্ঘটনায় নিহত ২৬১ প্রধানমন্ত্রীর নতুন মুখ্য সচিব তোফাজ্জেল হোসেন মিয়া অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির জন্য সমুদ্র নিরাপদ রাখতে কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী বিএনপি পল্টনেই কেন সমাবেশ করতে চায়, খতিয়ে দেখা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কক্সবাজারের মানুষ আমার হৃদয়ে আছে : প্রধানমন্ত্রী এলএনজি সরবরাহে আগ্রহী ইতালি বিএনপি অফিসে লাঠি-ককটেলের খবরে অভিযানে যায় পুলিশ: ডিএমপি কমিশনার ২০২৪ সালের প্রথম সপ্তাহে নির্বাচন, নৌকা মার্কায় ভোট চাই : প্রধানমন্ত্রী ভোলায় প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরে পাল্টে গেছে ভূমিহীনদের জীবন

নৌকা প্রতীক না পওয়ায় ভোলায় আ. লীগ নেতাদের গণ পদত্যাগ

ভোলা প্রতিনিধি:
  • আপলোডের সময় : রবিবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৯৫ বার পঠিত

আসন্ন পঞ্চম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে নৌকা প্রতীক না পেয়ে ভোলায় আওয়ামী লীগ নেতারা গণ পদত্যাগ নিচ্ছেন।

চরম ক্ষোভ ও দলের প্রতি অভিমান থেকে এ পদত্যাগ নিচ্ছেন তাঁরা। ভোলা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-দফতর সম্পাদক আনোয়ার হোসেন ছোটন প্রথম পদত্যাগ করেন। তিনি তাঁর ফেসবুক আইডিতে একটি পোষ্টের মাধ্যমে এ পদত্যাগের ঘোষণা দেন। ছোটন আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ভোলা সদর উপজেলা ২নং ইলিশা ইউনিয়ন থেকে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করার আশাব্যক্ত করেন।

পরে নৌকা প্রতীক না পেয়ে নিজেকে বিদ্রোহী প্রার্থী ঘোষণা দিয়ে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। ছোটনের পদত্যাগ ঘোষণা হওয়ার ঘন্টাখানেক পর ওই ইউনিয়নের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আনোয়ার হোসেন নামে আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থীও স্বেচ্ছায় দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে অব্যাহতি নেওয়ার ঘোষণা দেন। এরপর ভেদুরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. মোসলেউদ্দিন পাটোয়ারী, রাজাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রেজাউল হক মিঠু চৌধুরী ও পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গিয়াসউদ্দিন আহম্মেদসহ এই ৫ নেতাকর্মী স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করার ঘোষণা দেন।

পদত্যাগ ঘোষণা দেওয়া ওই ৫ নেতা আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক পাননি। তাই দল থেকে অব্যাহতি নিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন বলে ঘোষণা দেন। দলের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেওয়া এসকল নেতাকর্মীরা ১৫ ডিসেম্বর রাতে ভোলা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে পদত্যাগপত্র জমা দেন। সেগুলো গ্রহণ করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক মো.ইকবাল হোসেন। পদত্যাগপত্রে তাঁরা উল্লেখ করেছেন, তাদের সবাই পারিবারিক অসুবিধা থাকায় উক্ত পদ থেকে তাঁরা পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল ইসলাম বলেন, দলীয় কোনো পদে থেকে দলের সীদ্ধান্তের বিরুদ্ধে গিয়ে কাজ করা মানে দলীয় নীতিমালা ভঙ্গ করা।

যদি কেউ দলীয় সিদ্ধান্ত ভঙ্গ করে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে চায় তখন মনোনয়নপত্র দাখিলের পূর্বে দল থেকে পদত্যাগ করতে হবে। মনোনয়নপত্র দাখিলের পরে কোনো দলীয় কর্মীর পদত্যাগপত্র গ্রহণ করার নিয়ম নেই। তবে যাঁরা এখন পর্যন্ত এই পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছেন তাদের বিষয়ে দলীয়ভাবে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

দয়া করে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..