রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ০২:২৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতি প্রধান আসামি গ্রেফতার মুরাদনগরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্লাস্টিকের বেঞ্চ সরবরাহ দা-বঁটি-ছুরি-চাপাতি বানাতে ব্যস্ত কামার শিল্পী, টুংটাং শব্দে মুখরিত তাড়াইল মির্জাগঞ্জে আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) উদ্যোগে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ মিরপুর সাইন্স কলেজের ৩য় ব্যাচের শিক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজনে সকল রাজনৈতিক দলকে আমন্ত্রণ জানানো হবে : ওবায়দুল কাদের শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠকে দু’দেশের সম্পর্ক আগামীতে আরো দৃঢ় করার ব্যাপারে আশাবাদী মোদির শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগদান শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী মির্জাগঞ্জে উপজেলা চেয়ারম্যান আবু বকর, ভা: চেয়ারম্যান শাওন মহিলা ভা: চেয়ারম্যান হাসিনা নির্বাচিত পটুয়াখালী সদর উপজেলা পরিষদেের সকল বিজয়ীরা নতুন মুখ

‘মানবিক করিডোর’ খুলে দেওয়া হয়েছে : রাশিয়া

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
  • আপলোডের সময় : মঙ্গলবার, ৮ মার্চ, ২০২২
  • ৫৮৯৩ বার পঠিত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

বেসামরিক নাগরিকদের সরিয়ে নেওয়ার জন্য এর আগেও কিয়েভসহ চার শহরে অস্ত্রবিরতির ঘোষণা দিয়েছিল রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। তবে এমন উদ্যোগ প্রতিবারই ব্যর্থ হয়েছে। এ জন্য দুপক্ষই একে-অপরকে দোষারোপ করেছে। এমন আশঙ্কার মধ্যেই আজ মঙ্গলবার কিয়েভসহ চেরনিহিভ, সুমি, খারকিভ ও মারিওপোল শহরে মানবিক করিডোর খুলে দেওয়া হয়েছে।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

এর আগে গতকাল সোমবার ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভসহ খারকিভ, মারিওপোল ও সুমি শহরে সাময়িক অস্ত্রবিরতির ঘোষণা দিয়েছিল রাশিয়া। তবে মস্কো যেসব করিডোর ঘোষণা করেছে, এর বেশিরভাগ রাশিয়ার দিকে গেছে। এ জন্য গতকাল এ রকম প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছিল কিয়েভ সরকার। এ ছাড়া রুশ বাহিনী তাঁদের শর্ত মানছে না এবং সাধারণ নাগরিকদের ওপর হামলা চালানো হচ্ছে—এমন অভিযোগ এনে সাধারণ নাগরিকদের স্থানান্তর করেনি ইউক্রেন কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে এ শহরগুলো রুশ বাহিনীর আক্রমণের মুখে রয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

এদিকে, ইউক্রেন শর্তের একটি তালিকা মেনে নিলে ‘এক মুহূর্তেই’ সেখানে সামরিক অভিযান বন্ধ করে দিতে রাশিয়া প্রস্তুত বলে জানানো হয়েছে। ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ সোমবার এ কথা বলেছেন।

রাশিয়ার শর্ত বা দাবিদাওয়াগুলো তুলে ধরে দিমিত্রি বলেন, ‘মস্কো চায় ইউক্রেন সামরিক তৎপরতা বন্ধ করুক, নিরপেক্ষতা রক্ষার জন্য সংবিধান পরিবর্তন করুক, ক্রিমিয়া উপদ্বীপকে রাশিয়ার ভূখণ্ড হিসেবে স্বীকার করে নিক এবং দোনেৎস্ক ও লুহানস্ক বিচ্ছিন্নতাবাদী অঞ্চলকে স্বাধীন রাষ্ট্রের স্বীকৃতি দিক।’

পেসকভ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে ফোনে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘ইউক্রেন শর্তগুলো সম্পর্কে জানে। তাঁদের বলা হয়েছে, এসব শর্ত পূরণ করলে এ মুহূর্তেই রাশিয়ার সামরিক অভিযান বন্ধ হতে পারে।’

তবে ইউক্রেনের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে তাৎক্ষণিক কোনো প্রতিক্রিয়া জানানো হয়নি।

দয়া করে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..